স্কুল খুললেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা, বাড়ছে কেন্দ্র

স্কুল খুললেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা, বাড়ছে কেন্দ্র প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার পর পরই প্রায় ৩৩ হাজার সহকারি শিক্ষক পদের জন্য নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। করোনাভাইরাসের কারণে এবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেয়া হবে। সে জন্য বাড়ানো হচ্ছে পরীক্ষার কেন্দ্র।

তবে প্যানেল থেকে শিক্ষক নিয়োগের কোনো সুযোগ নেই। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষকের বিপুল সংখ্যক পদ খালি রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। এতে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এরমধ্যে করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

তবে শিগগিরই স্কুল খুলবে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। স্বাস্থবিধি মেনে ক্লাস নিতে বিদ্যালয়ের প্রত্যেকটি শ্রেণির শাখাও বাড়ানো হচ্ছে। এতে এখন যে সংখ্যক শিক্ষক রয়েছে, তাদের দিয়ে পাঠদান চালিয়ে কঠিন হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এজন্য দ্রুত খালি পদে নিয়োগের দাবি জানিয়েছেন শিক্ষকরা। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় ৩৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। এজন্য আবেদন হয়েছে ১৪ লাখ। বিদ্যালয় খুললে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ নিয়োগ পরীক্ষা হবে।

এ জন্য কেন্দ্রও বাড়ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া দ্রুত শেষ করতে চায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এদিকে প্যানেলে শিক্ষক নিয়োগের দাবি করে আসছেন ২০১৪ ও ২০১৮ সালের প্রার্থীরা। তবে সে সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

এছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের সাত হাজারের উপরে পদ খালি রয়েছে। সহকারি শিক্ষকদের পদোন্নতি দিয়ে এ পদ পূরণ করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

আরও পড়ুন: ৮৫ কোটি টাকা মূল্যের সাপের বিষ উদ্ধার রাজধানীতে